মতিচুর লাড্ডু/বুন্দিয়া লাড্ডু

20
মতিচুর লাড্ডু/বুন্দিয়া লাড্ডু

মতিচুর লাড্ডু/বুন্দিয়া লাড্ডু

রেসিপি ও ছবিঃ হেলেনা পারভিন রুমা

উপকরণঃ বেসন ২ কাপ
পানি (পরিমাণ মতো)
তেল (গরম) ১ টে চামচ (বুন্দিয়া ভাজার জন্য যে তেল গরম করা হবে সেখান থেকে নিতে হবে)
ফুড কালার সামান্য (লাল এবং সবুজ রং) {এটা সম্পূর্ণ অপসোনাল, না নিলেও চলবে}
তেল (ডুবো তেলে ভাজার জন্য)
কাজুবাদাম এবং পেস্তাবাদাম কুচি লাড্ডুতে দেওয়ার জন্য (না দিলেও চলবে)।

সিরার উপকরণঃ চিনি ২ কাপ
পানি ১ কাপ
লেবুর রস ১ চা চামচ (এতে করে বুন্দিয়া গুলো ক্রিস্টালাইজ হবে না)
ঘি ১ টে চামচ
এলাচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ (গোলাপজল দিলেও হবে)

আরও লাগবেঃ কড়াই (ছড়ানো) ১ টি
বুন্দি বানানোর সাঁচ (আমার কাছে নাই, তাই আমি ছোট ছোট গোল ছিদ্র ওয়ালা ছাঁকনির চামচ ব্যবহার করেছি)
ছাঁকনি (বুন্দি ভাজার পর তোলার জন্য)
চাঁলনি (বেসন চালার জন্য)

তৈরি করার নিয়মঃ প্রথমে চাঁলনি দিয়ে বেসন চেলে বোলে নিন (বেসন না চাললে গুটি গুটি বেঁধে থাকবে, ভালোভাবে পানিতে গুলবে না)। এবার একটু একটু করে পানি দিয়ে ব্যাটার তৈরী করে নিন। খেয়াল রাখতে হবে ব্যাটার যেন বেশি পাতলা অথবা বেশি ঘন না হয়। এখন ব্যাটার ১৫-২০ মিনিট ঢেকে রাখুন। এবার কড়াইতে ডুবো তেলে ভাজার জন্য প্রয়োজন মতো তেল মাঝারি আঁচে গরম করতে হবে এবং এখান থেকে ১ টে চামচ গরম তেল ব্যাটারে দিয়ে ব্যাটার আবার ভালো করে মিশিয়ে নিন (এই প্রসেসটা বুন্দি বনানানোর জন্য খুবই প্রয়োজনীয়)। এবার এই ব্যাটার থেকে দুটো আলাদা বাটিতে একটু করে ব্যাটার নিয়ে লাল এবং সবুজ রং মিশিয়ে লাল এবং সবুজ রংয়ের ব্যাটার তৈরী করুন। এবার গরম তেলে একটু উপর বুন্দি বানানোর সাঁচ ধরে এর উপর একটু একটু করে ব্যাটার ঢালতে হবে যাতে করে ছিদ্রগুলো দিয়ে ফোঁটা ফোঁটা করে ব্যাটার তেলে পড়বে। তেলে পড়ার সাথে সাথেই বুন্দি তেলের উপর ভেসে উঠবে।

মতিচুর লাড্ডু/বুন্দিয়া লাড্ডু

চুলার আঁচ মাঝারি থাকবে সবসময়। একটু ভেজেই ছাঁকনির সাহায্যে সবগুলো বুন্দি তুলে নিন। খেয়াল রাখতে হবে বুন্দিগুলো যেন বেশি ভাজা না হয়। এভাবে লাল এবং সবুজ রং সহকারে সবগুলো বুন্দি বানিয়ে নিন। প্রতিবার বুন্দি বানানোর সাঁচ পানি দিয়ে ভালো করে ধুঁয়ে কাপড় অথবা টিস্যু পেপার দিয়ে শুকিয়ে নিতে হবে তা না হলে ব্যাটার গোল গোল ফোঁটা ফোঁটা হয়ে তেলে পড়বে না, বুন্দির শেইপ ভালো হবে না। এবার পাতিলে সিরার জন্য চিনি ও পানি জ্বাল দিয়ে বলক আসলে এতে লেবুর রস দিয়ে চেক করতে হবে সিরা আঠালো হয়েছে কি না। খেয়াল রাখতে হবে সিরা যেন এক তার অথবা দুই তার না হয় শুধু মাত্র আঠালো হয়। এখন সিরা একটু আঠালো হলে এতে ঘি এবং এলাচ গুঁড়া দিয়ে নেড়ে ভেজে রাখা বুন্দিয়াগুলো দিয়ে ঢেকে চুলার আঁচ একদম কমিয়ে ৫ মিনিটের মতো জ্বাল দিন। ৫ মিনিট পর ঢাকনা খুলে নেড়ে দিতে হবে ততক্ষণে সব বুন্দিয়ার ভিতর চিনির সিরা গিয়ে বুন্দিয়া একটু নরম হবে। এবার চুলা বন্ধ করে এর উপর পাতিল ঢেকে রেখে দিতে হবে। ৭-৮ মিনিট পর ঢাকনা খুলে বাদাম কুচি ছিটিয়ে একটি চামচ দিয়ে বুন্দিয়াগুলো নেড়ে সব একত্রে ভালো করে মিশিয়ে নিন। বোলে সিরায় ভিজানো বুন্দিয়াগুলো ঢেলে হালকা গরম থাকা অবস্থায় হাত দিয়ে সবগুলো বুন্দিয়া একটু কঁচলিয়ে নিয়ে হাতে ঘি লাগিয়ে একটু একটু করে বুন্দিয়া নিয়ে টাইট করে গোল্লা করে চেপে চেপে গোল শেইপ করে একটা একটা করে লাড্ডু বানাত হবে। খেয়াল রাখতে হবে লাড্ডুর বাইন্ডিং যাতে হালকা করে করা না হয়, তা না হলে পরে খুলে যাবে, টাইট করে হাতে চেপে চেপে গোল গোল করে লাড্ডু বানাতে হবে। এভাবে সবগুলো লাড্ডু বানিয়ে নিন। ২ কাপ বেসন থেকে ১৮-২০ টা মাঝারি সাইজের লাড্ডু হবে। এবার ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন দারুণ মজার এই মতিচুর লাড্ডুতে/বুন্দিয়া লাড্ডু। এই লাড্ডু বাহিরে এক সপ্তাহ এবং নরমাল ফ্রিজে এক মাসের মতো সংরক্ষণ করতে পারবেন।

নোটসঃ
* বেসনের ব্যাটারটা যেন বেশি পাতলা অথবা ঘন না হয়।
* বুন্দিয়ার ব্যাটারটা এমনভাবে করতে হবে যেন সাঁচের উপর দিলে অল্প ঝাঁকাতেই যেন খুব সহজে তেলের উপর পরে।
* বুন্দিয়া সিরাতে দেওয়ার আগে ঠান্ডা করে ছাড়লে ভাল। সিরা টেনে নরম এবং তুলতুলে সুন্দর হয়।
* খুব বেশি বুন্দিয়া এক সাথে ভাজবেন না। এতে একটার সাথে আরেকটা লেগে যাবে।
* তেল ভাল করে গরম করে নিতে হবে।

মতিচুর লাড্ডু/বুন্দিয়া লাড্ডু

* বুন্দিয়া সিরাতে ঠিকমত না ভিজলে গন্ধটা থেকে যায়।
* সিরা খুব বেশি ঘন হবে না।
* সিরাতে দেবার পর যদি মনে হয় বুন্দিয়ে সিরা টানছে না তো হাতের মুঠিতে করে অল্প ঠান্ডা পানি নিয়ে বুন্দিয়ার ওপর ছিটিয়ে দিন ১বা২বার বুন্দিয়া সুন্দর নরম হয়ে যাবে।
* লাড্ডু বানানের সময় বুন্দিয়াতে আপনারা আপনাদের পছন্দ মতো ড্রাই ফ্রুটস কুচি করে এবং মাওয়া দিতে পারেন।
* লাড্ডু বানানো সময় হাতে ঘি মেখে নিবেন।